Home » Breaking News »  রোহিঙ্গাদের অসহায়ত্বকে পুঁজি করে ফায়দা লুটছে বিভিন্ন অসাধু মহল
ক্যাম্পের আইন শৃংখলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্য ।

 রোহিঙ্গাদের অসহায়ত্বকে পুঁজি করে ফায়দা লুটছে বিভিন্ন অসাধু মহল

হাসান হাফিজ, আরাকান টিভি : 

আরাকানের সেনা নিপীড়ন থেকে বাঁচতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে ফায়দা লুটছে সুবিধাবাদী অসাধু বিভিন্ন মহল । এসব সুযোগ সন্ধানী মহলের মধ্যে রয়েছে এনজিও, পুলিশ, স্থানীয় বখাটে এবং স্বয়ং রোহিঙ্গারাও । অসাধু মহলের অপতৎপরতায় জিম্মি হয়ে সর্বস্ব খোয়াচ্ছে ক্যাম্পের বাসিন্দারা । অনেক রোহিঙ্গা অতিষ্ট হয়ে নানাবিধি অভিযোগ করেছে ।

 

এনজিও’র  অপতৎপরতা !

রোহিঙ্গাদের অসহায়ত্বের সুযোগ ভালোভাবে কাজে লাগাচ্ছে খ্রিষ্টান মিশনারি গ্রুপগুলো। দারিদ্র্য, অশিক্ষা ও মানসিকভাবে বিধ্বস্ত রোহিঙ্গাদের সাহায্যের নামে এনজিও নামধারী এসব মিশনারি ধর্মান্তরের করে চলছে । কখনো গোপনে আবার কখনো প্রকাশ্যে খ্রিষ্টান ধর্মে দিক্ষিত করার কাজটি করছে কয়েকটি এনজিও। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে এ পর্যন্ত দুই হাজারের বেশি রোহিঙ্গাকে প্রলুব্ধ করে খ্রিষ্টান বানানো হয়েছে বলে বাংলাদেশের গোয়েন্দা সংস্থার কাছে রিপোর্ট রয়েছে । রোহিঙ্গাদের খ্রিষ্টান বানানোর কাজে নেতৃত্ব দাতা এনজিও’র একটি হচ্ছে  ‘ঈসায়ী চার্চ বাংলাদেশ’ (আইসিবি)। সংগঠনটির প্রায় ১৫ জন নেতা উখিয়া ও টেকনাফে দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন। নগদ টাকা দেয়া ছাড়াও ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করলে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ পাওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেয়া হচ্ছে রোহিঙ্গাদের। তথ্য মতে, খ্রিষ্টান বানানোর কাজে নিয়োজিত ‘ঈসায়ি চার্চ বাংলাদেশকে’ অর্থায়ন করছে নেদারল্যান্ডস ও আমেরিকাসহ কয়েকটি দেশ। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ধর্মান্তরিত রোহিঙ্গা খ্রিষ্ঠানরা আরো রোহিঙ্গাকে খ্রিষ্ঠান করার কাজে লীপ্ত রয়েছে ।

ডিবি’র চাঁদাবাজী  !

বার্মা সরকার ১৩০০ জন  সন্দেহভাজন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশান আর্মি (আরসা) সদস্যকে ধরিয়ে দেয়ার জন্য বাংলাদেশের কাছে তালিকা হস্তান্তরের পর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ডিবি পুলিশের তৎপরতা বেড়েছে । একই সাথে ডিবি পুলিশ পরিচয়ধারীদের অপতৎপরতাও বৃদ্ধি পেয়েছে । রোহিঙ্গাদের যে কাউকে আরসা সদস্য বলে আখ্যা দিয়ে গ্রেফতার এড়ানোর নামে হাতিয়ে নিচ্ছে নগদ অর্থ । এসব ডিবি পুলিশ পরিচয়ধারীদের জেরার মুখে অতিষ্ট রোহিঙ্গারা ।  এছাড়া রোহিঙ্গাদের গ্রেফতার করার ভয় দেখানো, ধমকি দেয়া, তল্লাসীসহ বিভিন্ন পন্থায় চাঁদাবাজি করছে । তবে ডিবি পরিচয়ধারীরা আসল না ভূয়া তা খতিয়ে দেখা সম্ভব হয়নি ।

স্থানীয় বখাটের উৎপাত !

 অস্থায়ী নতুন রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে অবাধ প্রবেশ-প্রস্থানের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে স্থানীয় বখাটেরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হরহামেশা ঘুরঘুর করে । ক্যাম্পে মাদক ব্যবসা, জুয়া, আড্ডা, ইভটিজিংসহ নানাবিধ খারাপ কাজে লীপ্ত হচ্ছে । অসহায় রোহিঙ্গাদেরকে বাধ্য করে ইয়াবা, গাঁজা প্রভৃতি মাদকের পাচার কাজ করাচ্ছে । সাধারণ রোহিঙ্গাদের ক্ষমতা নেই এসব বখাটেকে বারণ করার । অন্যদিকে পুলিশের সদস্যরাও এসব দেখে না দেখার ভান করে থাকে বলে জানাগেছে ।

 

রোহিঙ্গার অপকর্ম  !

ক্যাম্পে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের মুষ্টিমেয় কিছু লোক ত্রাস সৃষ্টি করে চলছে । স্বজাতির ক্ষতি সাধনই যেন তাদের পেশা । আরাকানে যেসব রোহিঙ্গা বর্মী বাহিনীর দালালীসহ নানান অপকর্মে লীপ্ত ছিল, বাংলাদেশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পেও তারা অপকর্ম করে চলছে । তাদের অপকর্মে পুরো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির বদনাম ছড়িয়ে পড়ছে । বিদেশ থেকে পাঠানো অর্থ হাতিয়ে নেয়া, ক্ষমতার অপব্যবহার, মাদক ব্যবসা, সুযোগ সন্ধানীদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন, পরষ্পর বিদ্বেষসহ খুনের মত জঘন্য কাজে লীপ্ত হতেও দ্বিধা করছেনা এসব দুষ্টচক্র । অপরাধ জগত থেকে নিজেদের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এসে দ্রুত সংশোধন না হলে স্বজাতির বদনামের নেপথ্যের কুশিলবদের মুখোশ উম্মোচন করবে আরাকান টিভি ।

আরো দেখুন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে ছলচাতুরী করছে বার্মা সরকার

ডিপ্লোমেটিক রিপোর্টার, আরাকান টিভি :  গত আগস্টের সেনা তান্ডবের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *